Pears/নাশপাতি, Health and Nutrition Benefits of Pears/নাশপাতির বিভিন্ন উপকারিতা


Pears are sweet, bell-shaped fruits that have been enjoyed since ancient times. They can be eaten crisp or soft.
They’re not only delicious but also offer many health benefits backed by science.
Impressive health benefits of pears.
1. Highly nutritious
Pears come in many different varieties. Bartlett, Bosc, and D’Anjou pears are among the most popular, but around 100 types are grown worldwide.
A medium-sized pear (178 grams) provides the following nutrients:
Calories: 101
Protein: 1 gram
Carbs: 27 grams
Fiber: 6 grams
Vitamin C: 12% of the Daily Value (DV)
Vitamin K: 6% of DV
Potassium: 4% of the DV
Copper: 16% of DV
This same serving also provides small amounts of folate, provitamin A, and niacin. Folate and niacin are important for cellular function and energy production, while provitamin A supports skin health and wound healing.
Pears are likewise a rich source of important minerals, such as copper and potassium. Copper plays a role in immunity, cholesterol metabolism, and nerve function, whereas potassium aids muscle contractions and heart function.
What’s more, these fruits are an excellent source of polyphenol antioxidants, which protect against oxidative damage. Be sure to eat the whole pear, as the peel boasts up to six times more polyphenols than the flesh.
2. May promote gut health
Pears are an excellent source of soluble and insoluble fiber, which are essential for digestive health. These fibers help maintain bowel regularity by softening and bulking up stool.
One medium-sized pear (178 grams) packs 6 grams of fiber — 22% of your daily fiber needs.
Additionally, soluble fibers feed the healthy bacteria in your gut. As such, they’re considered prebiotics, which are associated with healthy aging and improved immunity.
Notably, fiber may help relieve constipation. In a 4-week study, 80 adults with this condition received 24 grams of pectin — the kind of fiber found in fruit — per day. They experienced constipation relief and increased levels of healthy gut bacteria.
As pear skin contains a substantial amount of fiber, it’s best to eat this fruit unpeeled.
3. Contain beneficial plant compounds
Pears offer many beneficial plant compounds that give these fruits their different hues.
For instance, anthocyanins lend a ruby-red hue to some pears. These compounds may improve heart health and strengthen blood vessels.
Though specific research on pear anthocyanins is needed, numerous population studies suggest that a high intake of anthocyanin-rich foods like berries is associated with a reduced risk of heart disease .
Pears with green skin feature lutein and zeaxanthin, two compounds necessary to keep your vision sharp, especially as you age .
Again, many of these beneficial plant compounds are concentrated in the skin.
4. Have anti-inflammatory properties
Although inflammation is a normal immune response, chronic or long-term inflammation can harm your health. It’s linked to certain illnesses, including heart disease and type 2 diabetes.
Pears are a rich source of flavonoid antioxidants, which help fight inflammation and may decrease your risk of disease.
Several large reviews tie high flavonoid intake to a reduced risk of heart disease and diabetes. This effect may be due to these compounds’ anti-inflammatory and antioxidant properties.
What’s more, pears pack several vitamins and minerals, such as copper and vitamins C and K, which also combat inflammation.
5. May offer anticancer effects
Pears contain various compounds that may exhibit anticancer properties. For example, their anthocyanin and cinnamic acid contents have been shown to fight cancer.
A few studies indicate that diets rich in fruits, including pears, may protect against some cancers, including those of the lung, stomach, and bladder.
Some population studies suggest that flavonoid-rich fruits like pears may also safeguard against breast and ovarian cancers, making this fruit a particularly smart choice for women.
While eating more fruit may reduce your cancer risk, more research is needed. Pears should not be considered a replacement for cancer treatment.
6. Linked to a lower risk of diabetes
Pears — particularly red varieties — may help decrease diabetes risk.
One large study in over 200,000 people found that eating 5 or more weekly servings of anthocyanin-rich fruits like red pears was associated with a 23% lower risk of type 2 diabetes.
Additionally, a mouse study noted that plant compounds, including anthocyanins, in pear peel exhibited both anti-diabetes and anti-inflammatory effects.
What’s more, the fiber in pears slows digestion, giving your body more time to break down and absorb carbs. This can also help regulate blood sugar levels, potentially helping prevent and control diabetes.
7. May boost heart health
Pears may lower your risk of heart disease.
Their procyanidin antioxidants may decrease stiffness in heart tissue, lower LDL (bad) cholesterol, and increase HDL (good) cholesterol.
The peel contains an important antioxidant called quercetin, which is thought to benefit heart health by decreasing inflammation and reducing heart disease risk factors like high blood pressure and cholesterol levels.
One study in 40 adults with metabolic syndrome, a cluster of symptoms that increases your heart disease risk, found that eating 2 medium pears each day for 12 weeks lowered heart disease risk factors, such as high blood pressure and waist circumference .
A large, 17-year study in over 30,000 women revealed that every daily 80-gram portion of fruit decreased heart disease risk by 6–7%. For context, 1 medium pear weighs around 178 grams.
Furthermore, regular intake of pears and other white-fleshed fruits is thought to lower stroke risk. One 10-year study in over 20,000 people determined that every 25 grams of white-fleshed fruit eaten daily decreased stroke risk by 9%.
8. May help you lose weight
Pears are low in calories, high in water, and packed with fiber. This combination makes them a weight-loss-friendly food, as fiber and water can help keep you full.
When full, you’re naturally less prone to keep eating.
In one 12-week study, 40 adults who ate 2 pears daily lost up to 1.1 inches (2.7 cm) off their waist circumference.
Plus, a 10-week study found that women who added 3 pears per day to their usual diet lost an average of 1.9 pounds (0.84 kg). They also saw improvements in their lipid profile, a marker of heart health .
9. Easy to add to your diet
Pears are available year-round and easy to find in most grocery stores.
Eaten whole — with a handful of nuts if you choose — they make a great snack. It’s also easy to add them to your favorite dishes, such as oatmeal, salads, and smoothies.
Popular cooking methods include roasting and poaching. Pears complement chicken or pork especially well. They likewise pair nicely with spices like cinnamon and nutmeg, cheeses like Gouda and brie, and ingredients like lemon and chocolate.
However you choose to eat them, remember to include the skin to get the most nutrients.
নাশপাতি
বাজার দর অনুযায়ী মূল্য পরিবর্তনশীল এবং ষ্টক থাকা সাপেক্ষে।
সকল পণ্য হালাল রুপে বাছাই করে প্রযোজ্য ক্ষেত্রে ধুয়ে রোদে শুকিয়ে বাজারজাত করা হয়।
বনাজী ঔষধালয়ে নুতন পণ্যের অর্ডার বিবরনমূল্য জানতে ফেসবুক     
পেইজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন, share করে সহযোগিতা করুন প্লিজ।
ভেষজ গাছ গাছড়ার গুনাগুণ  উপকারিতা জানতে ভিজিট করুন এবং  subscribe করুন। ধন্যবাদ।
Please subscribe/like/follow for next posts, Thanks.


আমাদের খুব কাছের এবং অতি পরিচিত একটি ফল নাশপাতি। নাশপাতি আমরা অনেকেই খেতে ভালোবাসি। নাশপাতি গাছে থাকা অবস্থায় ভালভাবে পাকে না। ফলটি সাধারণত রসালো। তবে এ ফলের ৮৩ শতাংশই জলে পরিপূর্ণ। ফলের কেন্দ্রস্থলটি বেশ নরম। আবরণ অংশটি সবুজ অথবা লালচে প্রকৃতির হয়ে থাকে।
পুষ্টিগুন:- নাশপাতিতে রয়েছে ভিটামিন-এ, বি-১, বি-২, ই, ফলিক এসিড এবং নিয়াসিন নামক পুষ্টিকর উপাদান। এ ছাড়া ক্যালসিয়াম, পটাশিয়াম, কপার, আয়রনসহ অন্যান্য মিনারেলের উত্‍কৃষ্ট উত্‍স।
অ্যালার্জি নিয়ন্ত্রণে:- 
শিশুদের প্রায়ই প্রথম ফল হিসেবে নাশপাতি দেওয়া হয়। শুধু পুষ্টিগুণের জন্য নয়, এটি অ্যালার্জির পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া কমায়। যারা প্রায়ই হালকা জ্বর এবং অ্যালার্জি সমস্যায় ভোগে তাদের জন্য নাশপাতি খুবই উপকারী।
হাড়ের ক্ষয়রোধ করে:- 
উচ্চ মাত্রায় মিনারেল থাকার কারণে নাশপাতি দেহে ক্যালসিয়ামের যোগান দেয়। এটি হরমোন উত্‍পাদন এবং হাড়ের ক্ষয়রোধ করে। প্রতিদিনের প্রয়োজনীয় খাদ্য উপাদানের ১০ শতাংশ নাশপাতিতে বিদ্যমান। এ ছাড়াও নাশপাতিতে আছে হাড়ের জন্য অত্যাবশ্যকীয় 'ভিটামিন কে'।
কোষ্ঠকাঠিন্য:-
 কোষ্ঠকাঠিন্য তাড়াতে নাশপতির জুড়ি নেই। বিকালে বা রাত্রে খাওয়ার পর নাশপাতি খেলে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়।
হৃদরোগে:- 
করোনারি থ্রম্বোসিস, হার্ট ব্লক, মায়োকার্ডিয়াল ইনফ্যাকশন ইত্যাদি রোগে প্রতিদিন ২-৩ টুকরো নাশপতি খেলে খুবই উপকার হয়।
মাড়ি ক্ষয়রোধ:- 
দাঁতের মাড়ি ক্ষতিগস্ত হলে নাশপাতির রস ও অল্প ফিটকারি মিশিয়ে রেখে সকালে খেলে মড়ির ক্ষয় পূরণ হয়।
খুশকি ও চুল পড়া:- 
খুশকি ও পেটের পীড়ার কারণে মাথার চুল পড়ে গেলে সিকি কাপ নাশপাতির রস ১০-১৫ দিন খেলে চুল পড়া ও খুশকি দূর হয়।
রক্তে অ্যালকোহলের মাত্রা কমায়:- 
নাশপাতি রক্তে অ্যালকোহলের পরিমাণ কমায়। চলতি মাসের একটি গবেষণায় জানা গেছে যারা নাশপাতির জুস খায় তাদের স্মরণশক্তি ভালো থাকে এবং আলো কিংবা শব্দের প্রতি সংবেদনশীলতা কমে আসে।
ডায়াবেটিসের বিরুদ্ধে লড়াই:- 
চিকিত্‍সক ক্রিসটি বলেন, নাশপাতিতে বিদ্যমান পলিফেনল টাইপ-২ ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করে। পলিফেনল রক্তের শর্করার পরিমাণ কমায়। সপ্তাহে পাঁচবারের বেশি নাশপাতি খেলে ইনসুলিনের সংবেদনশীলতা বাড়ে। এটি চোখ, ত্বক এবং কিডনির সমস্যাও দূর করে।
গর্ভাবস্থায় উপকারী:- 
নাশপাতিতে ফলিক এসিডসহ গর্ভাবস্থার জন্য অন্যান্য উপকারী পুষ্টিগুণ রয়েছে। প্রতিটি বড় নাশপাতিতে প্রায় ১৪ মাইক্রোগ্রাম ফোলেট রয়েছে, যা ১১ বছরের অধিক বয়সীদের খাদ্য তালিকার প্রয়োজনীয় উপাদানের ২০০ গ্রাম এবং গর্ভবতী মায়েদের খাদ্য তালিকার প্রয়োজনীয় উপাদানের ৭০০ গ্রাম পূরণ করে। চিকিত্‍সকদের মতে, গর্ভবতী নারীদের জন্য প্রয়োজনীয় ফলিক এসিডের পরিমাণ সবচেয়ে বেশি থাকে নাশপাতিতে। মহিলাদের বিভিন্ন রোগ সহ মেনোপোজ পরবর্তী বিভিন্ন জটিলতা কাটাতে নাশপাতির জুড়ি নেই।
যষ্ঠিমধু গুড়া, কালিজিরা ১নং তৈল আস্ত/গুড়া পাওয়া যাচ্ছে।
মরিয়ম ফুল, চন্দন গুড়া, রিঠা পাউডার, শিকাকাই, মুলতানি মাটি, ত্রিফলা,
             জটামানসী, পুনর্ণবা, ত্বীন ফল, পিংক সল্ট, ব্রাঊন সুগার. কেশুরী মেথি, কারি পাতাসহ সকল প্রকার দুষ্প্রাপ্য ভেষজ এবং
আজওয়া, আনবারা, মরিয়ম,মসরুখ ও নাগাল খেজুর ।
পোলাও ও সিদ্ধ চালের খুদ, চালের গুড়া পাওয়া যাচ্ছে।
                    যাবতীয় বাদাম মসলা আস্ত/গুড়ার জন্য পরিদর্শন করুন
          গাওয়া ঘি, মধু সরিষার তৈল! ভেজালে মূল্য ফেরত
      বাড়ী#২৮,  রোড#,  ব্লক#এফ,  বনশ্রী, ঢাকা
             ফোন: ০১৬২০১২০৮১৭










Newer Posts Newer Posts Older Posts Older Posts

Comments

Post a Comment